প্রে’মের স্তর চারটি, আপনি কোনটিতে

মানুষের ব্রেনের যে অংশ জটিল সিদ্ধান্ত নেয়, প্রেমে পড়লে তার কার্যকারিতা কমে যায়। সম্প্রতি ইউনিভার্সিটি কলেজ লন্ডনের একদল গবেষক সম্প্রতি এমনই দাবি করেছেন। গবেষণায় আরও দেখা গেছে, যার সঙ্গে ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক গড়ে উঠছে, সেই মানুষটি কেমন তা বিচার করার ক্ষমতাও নাকি ব্রেনের কমে যায়।

অথচ অন্যান্য মানুষের চরিত্র বিচার করার ক্ষেত্রে ব্রেন স্বাভাবিকভাবে কাজ করে। যে কোনও ধরনের ভালোবাসাই মানুষের মস্তিষ্ককে দুর্বল করে দেয় গবেষকরা দাবি করেছেন।সম্পর্কের বিবর্তনের চারটি ধাপ আছে। চলুন সেগুলো কী জেনে নেয়া যাক-

প্রবল আকর্ষণের স্তর
প্রথম দর্শনেই প্রেম বলুন বা বন্ধুত বলুন, এই স্তরে আকর্ষণের টান প্রচণ্ড তীব্র থাকে। এই সময়টায় প্রেমিক-প্রেমিকা পরস্পরকে ছেড়ে থাকতে পারেন না। অর্থাৎ এ সময়টা শুধুই হরমোনের তীব্রতা আর ওঠাপড়ার সময়!

মধুচন্দ্রিমার স্তর
এই সময়টাও গোলাপি কাচের মধ্যে দিয়ে গোটা দুনিয়াটাকে রঙিন দেখানোর সময়! মনের মানুষের কোনও দোষ আপনার চোখে পড়বে না এখন! প্রেম অন্ধ, তা বোধহয় এই সময়টাকে দেখেই বলা হয়েছে।

আবেগের টান
এই স্তরে আবেগের গ’ভীরতা বেশি হয়। এই সময়ে পৌঁছে অনেকে ভবিষ্যতের পরিকল্পনা করেন। সম্পর্কে কোনও দ্বিধাদ্বন্দ্ব থাকলে তা শুধরে নেওয়ার সময়ও এখনই।

আত্মসমীক্ষার কাল
এই সময়ে আপনারা দু’জনেই পরস্পরের প্রতি অপরজনের দায়বদ্ধতা, প্রতিশ্রুতির দিকটা যাচাই করে নিতে চান। সম্পর্কের যে কোনও সমস্যা থাকলে তা এই সময়ে মেরামতের কাজটা শুরু হয়। এই স্তর পার হতে পারলে সুখী একটা দাম্পত্যজীবন পাওয়া যায়।