ছেলেদের যৌ’ন ক্ষ’মতা ক্ষ’তিগ্রস্থ হয় ৬ কারণে: ডা. কাজী ফয়েজা

কটা ছেলে দেখতে সুদর্শন হতে পারে। যৌ’নক্ষ’মতার দিক থেকে সে একটিভও হতে পারে। তার মানে এই নয় যে, সে বাবা হতে স’ক্ষম। সে বাবা হতে স’ক্ষম হবে কি, হবে না তা নির্ভর করবে তার সিমেনে স্পার্মের কোয়ালিটি ও পরিমাণের উপর।

অসতর্কতার কারণে অনেকের স্পার্মের কোয়ালিটি ন’ষ্ট হয়ে যায়। এজন্য সচেতনতার বিকল্প নেই। চিকিৎসা বিজ্ঞান বলছে, বেশ কয়েকটি কারণে ছেলেদের স্পার্ম ক্ষ’তিগ্রস্থ হতে পারে।নিচে গুরুত্বপূর্ণ ছয়টি কারণ উল্লেখ করা হলো-

সিমেনে স্পার্মের কোয়ালিটি ও পরিমাণের বি’ষয়টি কখনো কখনো জেনেটিকভাবে নির্ভর করে। আসলে সব রো’গেরই কিছু জেনেটিক ব্যাপার থাকে। কারো পূর্বপুরু’ষ যদি স’ন্তান জ’ন্ম’দানে অ’ক্ষম থেকে থাকে কিংবা দেরীতে স’ন্তান হয়ে থাকে তবে তাঁর মধ্যেও সেই প্রভাব পড়তে পারে।

কোনো পুরু’ষ যদি ধূমপায়ী হয়, কিংবা নিয়মিত ম’দ-মা’দক সেবন করে থাকে এটি তার সিমেনে প্রভাব ফেলবে। এতে করে স্পার্মের কোয়ালিটি কমে যাবে।* সে ( ছেলে) যদি কোনো গরম আবহাওয়াযুক্ত পরিবেশে কাজ করে, বা গরম আবহাওয়ায় বেশি সময় দেয় তাহলেও তার স্পার্ম ক্ষ’তিগ্রস্থ হবে।* অনেকে রোজ গরম পানিতে গোসল করে।

এ কারণেও অনেক সময় স্পার্ম কমে যায়।* কেউ কেউ খুব টাইট অন্তর্বাস পড়ে। এটিও স্পার্মের কোয়ালিটি ন’ষ্ট করার জন্য যথেষ্ট।* এছাড়া ছেলেদের ডায়াবেটিস থাকলে, মা’নসিক চা’প থাকলে, সে যদি কোনো মেডিসিন ব্যবহার করে, যে মেডিসিনের সাইড অ্যাফেক্ট হিসেবে স্পার্মের কোয়ালিটি ন’ষ্ট হয় তাহলে ছেলেদের স্পার্ম ক্ষ’তিগ্রস্থ হয়।

লেখক: ডা. কাজী ফয়েজা আক্তার, এমবিবিএস, এফসিপিএস, এমসিপিএস। কনসালটেন্ট, ইমপালস হাসপাতাল। ও সহকারী অধ্যাপক, গাইনি, প্রসূতি রো’গ বিশেষজ্ঞ ও সার্জন।

আরো পড়ুন আজ বাংলাদেশের স’ঙ্গে সম্প’র্ক কোথায় দাঁড়িয়েছে : মমতা ব্যানার্জি ভারতের নাগরিকত্ব সংশোধ’নী বিল-এনআরসির প্র’তিবাদে এবার গণ আন্দোলনে নামছেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি। রবিবার, সোমবার, মঙ্গলবার ও বুধবার,

টানা চারদিন কলকাতাসহ রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্তে প্র’তিবাদ মিছিলের ডাক দিলেন তিনি।দিঘায় মুখ্যমন্ত্রী মমতা বলেন, নো এনআরসি, নো ক্যাব। আইন পাস হলেও আমাদের স’রকার তা কার্যকর করবে না।

সকলকে বলছি, ধর্ম-বর্ণ-জাতি নির্বিশেষে সকলে গণতান্ত্রিক পদ্ধতিতে প্র’তিবাদ করুন।
সব রাজ্যে গণ আন্দোলন করুন। বাংলাতেও গণ আন্দোলন গড়ে তুলুন।এ প্রস’ঙ্গে দিঘায় শুক্রবার মমতা বলেন, আগামী সোমবার আমরা মিছিল করব। আম্বেদকরের মূর্তির সামনে দুপুর ১টায় জমায়েত করব। এরপর গান্ধী মূর্তির পাদদেশ থেকে জোড়াসাঁকো ঠাকুরবাড়ি পর্যন্ত মিছিল করব।

মঙ্গলবার দক্ষিণ কলকাতায় মিছিল করা হবে। সেদিন যাদবপুর ৮বি থেকে ১টায় মিছিল শুরু হবে। মিছিল যাবে গান্ধী মূর্তির পাদদেশ পর্যন্ত। বুধবারও আমরা মিছিল করব। কোথায় করব পরে জানাব। আগামী রবিবার জে’লায় জে’লায় সব ধর্ম-বর্ণের মানুষকে স’ঙ্গে নিয়ে শান্তিপূর্ণভাবে মিছিল করবে তৃণমূ’ল। ব্লকে ব্লকে মিছিল করা হবে।

ক্যাব-এনআরসি ইস্যুতে মোদি স’রকারকে উদ্দেশ্য করে মমতা বলেন, ক্যাব-এনআরসি নিয়ে অনেক বুঝিয়েছি। বেড়ালের গ’লায় ঘণ্টা বাজিয়ে বোঝানোর চেষ্টা করেছি। কতবার বলেছি, আ’গুন নিয়ে খেলতে যেও না, শোনেনি। আসাম, মেঘালয়, ত্রিপুরাসহ সব রাজ্যের আলাদা আবেগ রয়েছে। গায়ের জো’রে বলছে ক্যাব-এনআরসি করবে।

আমরা করতে দেব না। যে বিজেপি করবে, তাকেই শুধু নাগরিকত্ব দেওয়া হবে? বাকিদের না? আসামে আ’গুন জ্ব’লছে দেখু’ন, কী অ’ত্যাচার চলছে! বাংলাদেশের স’ঙ্গে সম্প’র্ক কোথায় দাঁড়িয়েছে আজ!বিজেপিকে আ’ক্রমণ করে মমতা আরো বলেন, বিজেপি এখন ওয়াশিং মেশিন। বিজেপিতে গেলে সাফ, না হলে জে’লে।

সা’ম্প্রদায়িকতার রং নিয়ে খেলছে বিজেপি। দেশজুড়ে অস্থিরতা চলছে। দেশের অর্থনীতি কালো মেঘে ছেয়ে গেছে। বেকারত্ব বাড়ছে, দারিদ্রতা বাড়ছে। একটা স’রকারের কাজ মানুষের উন্নয়ন করা। আমরা দেনা শোধ করেও সামাজিক কর্মসূচি যাতে ভালো করে চলে, সেদিকে খেয়াল রাখি। আমরা কাজ দিয়ে তা প্রমাণ করেছি।